1. newsroom@saradesh.net : News Room : News Room
  2. saradesh.net@gmail.com : saradesh :
মুখের দূর্গন্ধ: করণীয় সম্পর্কে জানালেন ডা: সৈয়দা ফারজানা আফরিন - সারাদেশ.নেট
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সরকারি খরচায় সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইডে ৩০৪৮ মামলায় আইনি সহায়তা শ্রম আইন প্র্যাকটিস এবং প্রাসঙ্গিক কথা : ড. উত্তম কুমার দাস, এডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট বাংলাদেশি শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করতে চায় রোমানিয়া কুমিল্লা সাংবাদিক ফোরাম, ঢাকা’র ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত বিচারপতি মোঃ আশফাকুল ইসলাম আপিল বিভাগে ভ্যাকেশন জাজ মনোনীত আপিল বিভাগের জেষ্ঠ্য বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি কারামুক্ত হলেন আইনজীবীদের নেতা ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বেসিক প্রিন্সিপালস্ অফ ডেন্টাল ফার্ফাকোলজি এর দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশ ‘ইতালিয়ান ভাষার’ ওপর পরীক্ষা উদ্বোধন করলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ইতালির রাষ্ট্রদূত ইতালিয়ান ভাষা শিক্ষাকোর্স ও পরীক্ষা কেন্দ্র উদ্বোধন বুধবার

মুখের দূর্গন্ধ: করণীয় সম্পর্কে জানালেন ডা: সৈয়দা ফারজানা আফরিন

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৮ জুন, ২০২৩

মুখের দূর্গন্ধের জন্য কথা বলতে ভয় পান ! করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানালেন-ডা: সৈয়দা ফারজানা আফরিন, বিডিএস(ঢাকা), পিজিটি (ডেন্টিস্ট্রি), শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। চীফ কনসালটেন্ট, আফরিন ডেন্টাল কেয়ার, বাড়ি নং-৩৮, রোড-৫, ব্লক-বি, বনশ্রী, রামপুরা সিরিয়াল- 01716810551,02224405586

সৈয়দা আইরিন আফরিন জেসি, সারাদেশ প্রতিবেদক:

কিভাবে মুখের অন্দরে খেয়াল রাখবেন?

# ভালো করে দিনে দুইবার ব্রাশ করতে হবে। ভালো পেস্ট ব্যবহার করতে হবে। ডেন্টাল ফ্লক্স ব্যবহার করতে হবে। জিভ ভালোকরে পরিষ্কার করতে হবে। ভালোকরে কুলকুচি করতে হবে। ৩ থেকে ৬ মাস পরপর মাউথওয়াশ ব্যবহার করু।

দাতেঁর যে কোনো সমস্যা অনুভূত হলেই চিকিৎসকের (ডেন্টাল সার্জন) শরণাপন্ন হোন।

ডা: আফরিন বলেন, মুখের স্বাস্থ্যের প্রতি খেয়াল ও যত্নশীল না হলেই দূর্গন্ধ (Bad Breath) সূত্রপাত হয়। তাছাড়াও আরো সুনির্দিষ্ট কারণ রয়েছে। মূ্খের দূর্গন্ধের জন্য নানা বিব্রতকর পরিস্থিতির মূখে পড়তে হয়।

মুখে দুর্গন্ধ কেন হয়, কী করবেন?

> মুখে বাজে গন্ধ অনেকেরই হয়ে থাকে। এমন সমস্যায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়। বন্ধু-সঙ্গীরা মুখ ফিরিয়ে নেয় অনেক সময়। এমন জটিল সমস্যার সহজ সমাধান আছে।

মুখে দুর্গন্ধ কেন হয় :

১. খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন
২. শারীরিক কিছু রোগ এবং মুখ ও দন্ত রোগের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা
৩. সঠিক পদ্ধতিতে দন্ত পরিচর্যা।
৪. দীর্ঘসময় ধরে না খেয়ে থাকা।
৫. মুখের থুথু কমে যাওয়া- থুথু মুখের ব্যাকটেরিয়ার প্রজনন বন্ধ করে কিন্তু রমজানে থুথুর পরিমাণ কমে যাওয়ায় ব্যাকটেরিয়াগুলোর দ্রুত প্রজনন হয়ে থাকে, যা দুর্গন্ধের কারণ হয়।
৬. যেসব খাবার মুখের পানিশূন্যতা সৃষ্টি করে, তা বেশি খাওয়া।
৭.কম পানি পান করা ৮.যেসব খাবার মুখের দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে, সেহরি বা ইফতারের সময় সেগুলো খাওয়া।
৯. নিয়মিত নিয়মমতো মুখ ও দাঁতের পরিচর্যা না করা।
১০. কিছু কিছু শারীরিক সমস্যা থাকা যেমন- নিয়ন্ত্রণহীন ডায়াবেটিস, পেটের পীড়া, লিভারের সমস্যা, টনসিলজনিত সমস্যা ইত্যাদি।
১১. মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়ার অভ্যাসগত সমস্যা।
১২. দীর্ঘ সময় কিছু না খাবারের কারণে ও জিহ্বা পরিষ্কার না করার কারণে জিহ্বার উপর সালফারের প্রলেপ পড়ে মুখে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়।

আরো যা করতে হবে :

মুখের এ দুর্গন্ধ থেকে বাঁচতে আমরা যেসব ব্যবস্থা নেব- দৈনিক কম করে হলেও ৩ থেকে ৪ লিটার গ্লাস পানি খেতে হবে। ফলমূল, শাকসবজি, দইজাতীয় খাবার বেশি করে খাওয়া উচিত। লেবু, জাম্বুরা, কমলা, কামরাংগা, মাল্টা ও আনারসের শরবত পান করা। গাজর, শসা, টমেটো, আমড়া ও আমলকি ইত্যাদি খাদ্য তালিকায় রাখা।

# খাবারের পর ৩০-৬০ মিনিট আমাদের অপেক্ষা করতে হবে, ব্রাশ করার জন্য যেন প্রাকৃতিক উপায়ে থুথুর মাধ্যমে খাদ্য পরিষ্কার হয়ে যেতে পারে ও মুখের নরমাল PH বহাল থাকে। খাবারের পরপরই মুখের PH এসিডিক থাকে, খাবার পর থুথু প্রথম মুখের PH নরমাল করে। তাই খাবারের পরপরই দাঁত ব্রাশ করার ফলে এনামেলের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অপরদিকে এসিডিক PH -এ ব্যাকটেরিয়ার প্রজনন হার বেশি।

# অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল মাউথ ওয়াশ যেমন- ০.২ শতাংশ ক্লোরহেক্সিডিন অথবা ০.৫ শতাংশ পভিডোন আয়োডিন প্রতিদিন ৩ বার, ২ চামচ ৩০ সেকেন্ড ধরে প্রতিবার কুলকুচি করতে হবে। গোলাপ জল দিয়ে গার্গল করা যেতে পারে।

# প্রতি রাতে ১ বার ডেন্টাল ফ্লস ব্যবহার করতে হবে। মেনথল গাম ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে খাওয়া যেতে পারে। নাক দিয়ে শ্বাস নেওয়ার অভ্যাস করা। মুখ ও দাঁতের অসম্পূর্ণ চিকিৎসা সম্পন্ন করে নেয়া, যাতে খাবার না জমতে পারে।

# কোভিড জনিত কারণে মাস্ক পরলে, এজন্য মুখ দিয়ে সবাইকে শ্বাস নেয়ার প্রবণতা দেখা যায়। তাই সিডিসি গাইডলাইন অনুযায়ী, রোজাকালীন ৪ ঘণ্টা পরপর মাস্ক পরিবর্তন করতে হবে। পুনরায় ব্যবহারকৃত মাস্কগুলো ৪ ঘণ্টা পর প্লাস্টিকের ডাস্টবিনে রাখতে হবে পরে ধুয়ে পরতে হবে। রুমে একা থাকার সময় মাস্কবিহীন থাকতেহবে।

বর্জনীয়:

# পিঁয়াজ, রসুন, মরিচ ইত্যাদি খাদ্যের মধ্যে যে কেমিক্যাল থাকে তাহা রক্তবাহিত হয়ে প্রথমে ফুসফুসে আক্রমণ করে পরে তা প্রশ্বাসের মাধ্যমে বেরিয়ে এসে গন্ধের সৃষ্টি করে। ধূমপান পরিহার করতে হবে। খাবার সোডা ও কার্বোনেটেড ফলের রসে উচ্চমাত্রায় চিনি থাকে তাই এগুলো পানিশূন্যতার সৃষ্টি করে। মুখ দিয়ে শ্বাস নেয়ার অভ্যাস বর্জন করতে হবে।

আইআই/ডিএএস//

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *