1. newsroom@saradesh.net : News Room : News Room
  2. saradesh.net@gmail.com : saradesh :
১০০ চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলা নিয়ে এডভোকেট শিশির মনিরের বই প্রকাশ - সারাদেশ.নেট
সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ১১:৫২ অপরাহ্ন

১০০ চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলা নিয়ে এডভোকেট শিশির মনিরের বই প্রকাশ

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২২

দিদারুল আলম :
১০০ চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলা নিয়ে বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্টের এডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির বই প্রকাশ করেছেন।

বুধবার হয়ে গেলো বইটির প্রকাশনা অনুষ্ঠান। সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির উত্তর হলে বইটির প্রকাশনা উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ। অনুষ্ঠানে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে ক্রিমিনাল মামলায় প্র্যাকটিসরত বিশিষ্ট আইনজীবীগণ এবং বিপুল সংখ্যক আইনজীবী ও গনমাধ্যমকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা, জেল হত্যা মামলা, সৌদি কূটনীতিক খালাফ হত্যা, স্কলাস্টিকার ছাত্রী শাজনীন হত্যা, ইয়াসমিন ধর্ষণ ও হত্যা, এরশাদ শিকদারের মামলাসহ ১০০ গুরুত্বপূর্ণ মামলা একত্রিত করে এই গ্রন্থ লেখা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আদালতের ভরসাস্থল হতে জুনিয়র আইনজীবীদের আহ্বান জানিয়েছেন আপিল বিভাগের বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ।

বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ বলেন, ‘আমার বেঞ্চে যখন শিশির মনির দাঁড়াতেন, তখন আমি খুব ভরসা পেতাম। আইনের ব্যাখ্যা এবং রেফারেন্সগুলো তুলে ধরেন তিনি। এই যে ভরসাস্থল। একজন জুনিয়র আইনজীবী আদালতের ভরসাস্থল হিসেবে দাঁড়াতে পারেন সে জন্য আমার সামনে জুনিয়রদের উদ্দেশ করে বলব আপনারা এমন একটা জায়গায় যান।’

এডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির লিখিত ‘অ্যান ওভারভিউ অফ ১০০ সেনসেশনাল মার্ডার কেজেজ অফ বাংলাদেশ’ শিরোনামে বইটি মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তাকে অতিথি করায় ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান এ বিচারপতি। তিনি জানান, চলতি বছরেই শেষ হচ্ছে তার বিচারিক জীবন। দীর্ঘ ৪১ বছর তিনি বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বলে তিনি জানান।

বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ বলেন, ‘আমার ৪১ বছরের বিচারিক জীবনে আপনাদের (আইনজীবী) কাছ থেকে অনেক শিখেছি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন পাস করার পর ৯ মাস আমি আইনজীবী হিসেবে অনুশীলন করার সুযোগ পেয়েছিলাম। পরে আমি বিসিএস দিয়ে বিচার বিভাগে চলে আসি।’

আপিল বিভাগের এই বিচারপতি বলেন, ‘একমাত্র নারী আইনজীবী হিসেবে রাজশাহী আদালতে আমি প্রথম শুনানিতে অংশ নিয়েছিলাম। এখন তো মহিলারা ভালো করছেন। এটা শুধু আমি মহিলা হিসেবে বলছি না। আমি বিচারিক জীবনে বিচার করতে গিয়ে আপনাদের কাছ থেকেই শিখেছি।

‘এখন থেকে ২০/২৫ বছর পরে তখন হয়তো আমরা অনেকেই থাকব না। এত বছর পরে আইন অঙ্গনে আজকের মতো খন্দকার মাহবুব হোসেনের মতো থাকবেন, তাদের মধ্যে একজন হবেন শিশির মনির। আমার বেঞ্চে যখন শিশির মনির দাঁড়াতেন, তখন আমি খুব ভরসা পেতাম। আইনের ব্যাখ্যা এবং রেফারেন্সগুলো তুলে ধরেন তিনি। এই যে ভরসাস্থল। একজন জুনিয়র আইনজীবী আদালতের ভরসাস্থল হিসেবে দাঁড়াতে পারেন সে জন্য আমার সামনে জুনিয়রদের উদ্দেশ করে বলব আপনারা এমন একটা জায়গায় যান।’

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বিশিষ্ট আইনজীবী ও ফৌজদারি আইন বিশেষজ্ঞ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘এই বইটি স্বর্ণখনির ন্যায় আইনজীবী ও বিচারকদের জন্য কাজে দেবে। এটি হ্যান্ডবুক হিসেবে থাকা উচিত।’

বিশিষ্ট আইনজীবী মুনসুরুল হক চৌধুরী বলেন, ‘একজন ইয়াং আইনজীবী হিসেবে শিশির মনির এই বই লেখার যে উদ্যোগ নিয়েছেন তা বিরল। তার এই লেখার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবেন বলে প্রত্যাশা করছি।’

আইনজীবী এম শামসুল হক বলেন, ‘একটা জাতি কতটা সংস্কৃতিমনা সেটা নির্ভর করে সে জাতির বিচারব্যবস্থার ভূমিকার ওপর।’

আইনজীবী এ কে এম ফজলুল হক খান ফরিদ বলেন, ‘একজন আইনজীবীর জীবন শুধু ওকালতি না। জীবনকে উপভোগ করতে হবে। একটা বিচার বিভাগের বার যদি সমৃদ্ধ না হয়, তাহলে বেঞ্চ (আদালত) সমৃদ্ধ হবে না।’

বিশিষ্ট ফৌজদারি আইন বিশেষজ্ঞ আইনজীবী এসএম শাহজাহান বলেন, ‘আইন পেশায় ভালো করতে হলে আইনটা ভালো করে পড়তে হবে। কিন্তু তা না করে আমরা শুধু শর্টকাট সিদ্ধান্ত খুঁজে বেড়াই, রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহারের জন্য।’

সুপ্রিমকোর্টের এডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির জনস্বার্থ সংক্রান্ত বিভিন্ন মামলা এবং অন্যন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আনা মামলায় আইনি লড়াইয়ে একজন তরুণ মেধাবী আইনজীবী হিসেবে সকলের নজর কেড়েছেন।

ডিএএম/এসএম//

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *