1. newsroom@saradesh.net : News Room : News Room
  2. saradesh.net@gmail.com : saradesh :
পশ্চিম বঙ্গ ভোট : বেলা বাড়তেই নন্দীগ্রামে উত্তপ্ত পরিস্থিতি - সারাদেশ.নেট
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৫০ অপরাহ্ন

পশ্চিম বঙ্গ ভোট : বেলা বাড়তেই নন্দীগ্রামে উত্তপ্ত পরিস্থিতি

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১ এপ্রিল, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : পশ্চিমবঙ্গ বিধান সভা নির্বাচনের আজ ১ এপ্রিল চলছে দ্বিতীয় দফা ভোট।

মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল প্রার্থী এবং তারই একসময়ের সঙ্গী শুভেন্দু অধিকারী বিজেপির প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় করছেন নন্দীগ্রামে একটি আসনে। আজ হচ্ছে এ আসনে ভোট।

আজ সেখানে সকালে সরেজমিন দেখা যায়,
নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লকের দাউদপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ১৮৩-১৮৬ নম্বর বুথে মেশিন খারাপ হওয়ায় ভোটের অপেক্ষায় দীর্ঘ লাইন দেখা যায়।

ভোট শুরু হতেই বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই নন্দীগ্রামের পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে।

কোথাও বোমাবাজি, কোথাও আবার বুথের পাশে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। ভেকুটিয়ায় আবার এক বিজেপি কর্মীর আত্মহত্যার ঘটনা সামনে এসেছে। পরিবারের অভিযোগ, তৃণমূলের লোকেরা হুমকি দিচ্ছিল। চাপ সহ্য করতে না পেরে আত্মঘাতী হয়েছেন ওই ব্যক্তি। বিজেপি-র অভিযোগ, তাঁদের কর্মীকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছে তৃণমূলের লোকেরা। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

অন্য দিকে, সোনাচূড়ার কালীচরণপুরে বোমাবাজির ঘটনাকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। বিজেপির বিরুদ্ধে বোমাবাজির অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল। তবে এই ঘটনার সঙ্গে তাদের কোনও যোগ নেই বলেই পাল্টা দাবি করেছেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব।

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফার ভোট। রায় দিতে সকাল থেকেই ভোটকেন্দ্রগুলিতে হাজির হয়েছেন নন্দীগ্রামবাসী। তাঁদের এই রায়ই ঠিক করে দেবে ২ মে হাসিটা কার মুখে থাকে— মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নাকি শুভেন্দু অধিকারী।

এই দফায় ভোট হচ্ছে ৪ জেলার ৩০টি আসনে। তার মধ্যে রয়েছে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা।

চার জেলাতে ভোট হলেও দ্বিতীয় দফার এই ভোটে কিন্তু উত্তাপ বাড়াচ্ছে নন্দীগ্রাম। যা রাজ্য রাজনীতি তো বটেই, জাতীয় রাজনীতিতেও বেশ কৌতূহলের সঞ্চার করেছে। অনেক তারকা প্রার্থী আছেন এই দফার ভোটে। কিন্তু নন্দীগ্রামের দুই যুযুধান প্রতিপক্ষ মমতা-শুভেন্দুর লড়াইয়ের দ্যুতিতে সেই তারকারাও যেন কেমন ফিকে হয়ে গিয়েছে। এই দফায় ৩০ আসনে ভোট হলেও নন্দীগ্রাম কেন্দ্রই একা সেই ৩০ আসনের সমান হয়ে দাঁড়িয়েছে কেবলমাত্র মমতা এবং শুভেন্দুর দ্বৈরথে।

জয় ছিনিয়ে নিতেই হবে-এই মন্ত্র নিয়ে দুই প্রতিপক্ষই নন্দীগ্রামের এ প্রান্ত ও প্রান্ত চষে ফেলেছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আসলে দুই প্রতিপক্ষের লড়াই নয়, এটা এখন ‘প্রেস্টিজ ফাইট’-এ পর্যবসিত হয়েছে। যা এ বারের নির্বাচনের লড়াইকে আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ করে তুলেছে

কোনও রকম অপ্রীতিকর পরিস্থিতি যাতে তৈরি না হয়, তার জন্য গোটা নন্দীগ্রামকে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার বলয়ে মুড়ে ফেলা হয়েছে।

সেখানে জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। মমতা যে দিন নিজেকে নন্দীগ্রামের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছিলেন এবং ঠিক তার পর পরই বিজেপি যখন শুভেন্দুকে এই নন্দীগ্রামেই প্রার্থী করল, সে দিন থেকেই এই নির্বাচনের ২৯৪ আসনের সব নির্যাস শুষে নিয়েছে এই কেন্দ্র।

এখন নন্দীগ্রামবাসীর অঙ্গুলি কোন দিকে হেলবে, তার জন্য ২ মে পর্যন্ত অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করতে হবে গেরুয়া এবং জোড়াফুল শিবিরকে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *